নাটক করতে চান শামীম ওসমান!

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেছেন, নাটক জিনিসটা বিশেষ করে মঞ্চ নাটক মোটামুটিভাবে অনেকটা বিলুপ্তির পথে। নারায়ণগঞ্জে ছোটবেলায় দেখতাম রেগুলার নাটক হতো। নাটকের পর নাটক হতো। আমি নিজেও জীবনে একটা নাটক করেছিলাম। আমার বাবা ছিলে চিফ গেস্ট। গভর্মেন্ট গার্লস স্কুলে নাটকটা হয়েছিল। আমার বাবাকে দেখে আমি নাটকের ডায়ালগ ভুলে গিয়েছিলাম। টেলিভিশনে নাটক করা খুব সহজ। কারণ কাট করার সুযোগ আছে। কিন্তু মঞ্চ নাটক অনেক কঠিন। ডায়লগ মনে রাখতে হয়, জনসাধারণের সামনে অনেক কিছুই পরিষ্কার করতে হয়।

শনিবার (৩০ নভেম্বর) বিকেলে সরকারি গণগ্রন্থাগারে নারায়ণগঞ্জ সম্মিলিত নাট্যকর্মী জোটের নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী পরিষদের অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।তিনি বলেন, আমি সংসদে প্রায়ই মজা করি। শেষ অধিবেশনেও আমি আসাদুজ্জামান নূর ভাইকে বললাম আমাকে একটা নাটকে চান্স দিলেন না।

তিনি বললেন, তুমি কি অভিনয় করবা। আমি বললাম শুধু একটা অভিনয়ই দেবেন, যা দেবেন দেবেন, শুধু একটা জিনিস পারবো না। মহিলা মানুষ ধরতে পারবো না। এটাই সমস্যা আছে। তিনি বললেন, ঠিক আছে। তাহলে এক কাজ করো, আমি একটা নাটক করবো আমি জমিদার। আমি বললাম, তাহলে আমি কি? তুমি বলো তুমি কি হইবা, তাহলে আমি জমিদারের চামচা। তখন সুবর্ণা মোস্তফা ছিলেন। তিনি বললেল, সুবর্ণা মোস্তফা হবে জমিদারনি। আমি বললাম, ঠিক আছে।

আমি এই মাধ্যমটাকে পছন্দ করি। যখন স্বাধীনতা সংগ্রাম চলছিল নারায়ণগঞ্জে যারা ছিলেন, এ নাটকের মাধ্যমে কিন্তু স্বাধীনতা সংগ্রামের কথা ছড়িয়ে দেয়া হয়েছিল। পাকিস্তানিরা বুঝতোও না, এ নাটক আর যাত্রা দিয়ে মানুষকে উজ্জীবিত করা যায়। আমাদের এখানে কোনো মঞ্চ নেই। পৌর পাঠাগার ছিল আগে, এটা নাটক করার মতো খুব একটা উপযোগ্য নয়। শুনলাম, দেখি নাই। জিয়া হলেরও অবস্থা খুব খারাপ। শিল্পকলা ভবন প্রস্তুত হচ্ছে, আমি এটাকে ত্বরান্বিত করার চেষ্টা করবো। মাঠে নাটক করা যায় ইচ্ছা করলে। আপনারা নাটক করার উদ্যোগ নেন। যত রকমের সহযোগিতা প্রয়োজন হয় আমি করবো।

শামীম ওসমান বলেন, পারলে আমাকেও একটা ছোটখাটো রোল দিয়েন। আমিও অভিনয় করবো। আমি সিরিয়াসলি বলতেছি। আমি চাই, আমার খুব নাটক করতে ইচ্ছা করে। তবে আপনাদের মতো না পারলেও একটু চেষ্টা করবো। আর সারা দুনিয়াতে এবং নারায়ণগঞ্জে যে নাটক চলতেছে এখন এ নাটক দেখতে দেখতে নাটক শিখে গেছি। আসল আর নকল কোনটা এখন বুঝায় যায় না। আপনারা দেরি করবেন না। সামনে বিজয় দিবস, একুশে ফেব্রুয়ারি, নতুন বছর, মুজিব বর্ষকে সামনে রেখে নাটক করা শুরু করেন। আপনাদের সহযোগিতা করবো। নাটকগুলো যদি বাস্তবমুখী হয়, তাহলে নাটক মানুষকে অনেক কিছুই দিতে পারে। এখানে কোনো রাজনীতি আনবেন না। না আওয়ামী লীগ, না বিএনপি, না জাতীয়পার্টি। আপনারা নাটক করবেন এবং সমাজে যে সমস্যাগুলো সেই সমস্যাগুলো তুলে ধরবেন।

বক্তব্য শেষ করার আগে শামীম ওসমান আবার নারায়ণগঞ্জ সম্মিলিত নাট্যকর্মী জোটের নব নির্বাচিত কার্যনির্বাহী পরিষদের সভাপতি হুমায়ুন কবিরকে উদ্দেশ্য করে বলেন, নাটক যদি হয়, আমাকে রোল দিবেন। তখন হুমায়ুন কবির বলেন, আপনাকে নায়কের বাবার অভিনয় দেব। তখন শামীম ওসমান বলেন, নায়কের বাবা দেন, নায়িকার বাবা দেন সমস্যা নাই, বাড়ি-ঘরে শান্তি থাকলেই হইলো।

নারায়ণগঞ্জ সম্মিলিত নাট্যকর্মী জোটের নব নির্বাচিত কার্যনির্বাহী পরিষদের সভাপতি মো. হুমায়ুন কবিরের সভাপতিত্বে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজিম উদ্দিন প্রধান, বাংলাদেশ হোসিয়ারী এসোসিয়েশনের সভাপতি নাজমুল আলম সজল, বিএমএইএর পরিচালক মো. কবির হোসেন ও নাট্যকর্মী জোটের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা মিন্টুসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares