যে দেশে কোর্স না করলে বিয়ে করা যাবে না

চাইলেই এখন আর বিয়ে করা যাবে না। বিয়ের পিঁড়িতে বসতে হলে করতে হবে কোর্স। আর পাশ করলেই কেবল ছাদনাতলায় বসা যাবে। এছাড়া লাগবে সরকারের প্রশংসাপত্রও।সম্প্রতি এমনই অভিনব কোর্স চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইন্দোনেশিয়ীয় সরকার। সেদেশের হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড কালচারাল অ্যাফেয়ার্সের কো-অর্ডিনেটিং মন্ত্রী মুহাদজির এফেন্দি একথা ঘোষণা করেন।

আগে শুধু পাত্র বা পাত্রী পছন্দ ও দুই পরিবারের কথাবার্তা হলেই চলতো। তবে এখন বিয়ের জন্য প্রয়োজন একটি কোর্স করারও। তাতে পাশ করলে তবে আপনি পাবেন বিয়ের জন্য ছাড়পত্র।অবাক হচ্ছেন নিশ্চয়ই।কিন্তু অবাক লাগলেও বিষয়টি সত্যি।নিজের অভ্যস্ত পরিবেশ ছেড়ে বিয়ের পর তরুণীদের চলে আসতে হয় শ্বশুরবাড়ি। স্বাভাবিকভাবেই বিয়ের পর মানুষের জীবনে নানা বদল আসে।

এই পরিবর্তন কেউ কেউ মানিয়ে নিতে পারেন। দাম্পত্য জীবন বেশ সুখে কাটতে থাকে তাদের। আর কেউ কেউ বদলগুলির সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারেন না।তাই অনেক সময় সম্পর্ক বিচ্ছেদে রূপ নেয়।বিয়ের আগের মাত্র তিন মাসের ছোট্ট কোর্স দেবে মানিয়ে নেওয়ার শিক্ষা। পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে কীভাবে সকলকে নিয়ে মিলেমিশে চলতে হয় তার শিক্ষা মিলবে ওই কোর্সে।

এছাড়াও যৌন শিক্ষা, বিভিন্ন রোগের প্রাথমিক জ্ঞান ও সন্তান লালনপালনের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণও দেওয়া হবে ওই কোর্সে।যেকোনও বিবাহযোগ্য তরুণ-তরুণী সম্পূর্ণ নিখরচে এই কোর্স করতে পারবেন। এই কোর্স যারা করবেন তারা সুন্দর পরিবার গড়ে তুলতে পারবেন বলেই আশাবাদী ইন্দোনেশীয় সরকার।তিন মাসের এই কোর্স শেষ হলে নেওয়া হবে পরীক্ষা। তাতে পাশ করলে দেওয়া হবে একটি সার্টিফিকেট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares