পিয়নের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ৩০ কোটি টাকা

লিবিয়ায় মানব পাচারের ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য পেয়েছে সিআইডি। তারা ৩৬ জন পাচারকারীকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদের মাঝে একটি এজেন্সির একজন পিয়নও রয়েছেন। সেই পিয়নের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ২০-৩০ কোটি টাকা রয়েছে বলে জানতে পেরেছেন সিআইডির তদন্তাকারীরা।আজ সোমবার ( ৬ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি হেডকোয়ার্টার্সে এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য দিয়েছেন সিআইডি প্রধান অতিরিক্ত আইজিপি ব্যারিস্টার মাহবুবুর সবার আগে আপডেট পেতে পেইজে লাইক দিনরহমান। সিআইডির কার্যক্রমের বিষয়ে ব্রিফিংয়ে জানানো হয়। লিবিয়ার প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, লিবিয়ায় বাংলাদেশের ২৬ জন নিহত হয়েছেন। ১১ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় বাংলাদেশের বিভিন্ন থানায় ২৬ টি মামলা হয়েছে। যার মধ্যে ১৫ টি মামলার তদন্ত করছে সিআইডি। এসব মামলায় এ পর্যন্ত ৬৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর মধ্য সিআইডি ৩৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। একজন পিয়নের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ২০-৩০ কোটি টাকা পাওয়া গেছে। বিশ্বখ্যাত ম্যাসাচুসেট ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির (এমআইটি) বায়োইঞ্জিনিয়ারিং ল্যাব ও হাভার্ড ইউনিভার্সিটির গবেষকরা নতুন প্রযুক্তির ফেস মাস্ক তৈরি করছেন। কোনো ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেই এই মাস্কে আলো জ্বলবে।গবেষণা দলটির প্রধান জিম কলিন্স জানিয়েছেন, এখনও মাস্ক তৈরির প্রকল্পটি প্রাথমিক পর্যায়ে আছে। রোগীর হাঁচি-কাশি বা নিঃশ্বাসের মধ্যে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি থাকলেই মাস্কটিতে আলো জ্বলবে। তাপমাত্রা মেপে আর জ্বর পরীক্ষা করার প্রয়োজন হবে না।বর্তমানে লালা থেকে নমুনা নিয়ে করনাভাইরাস শনাক্তে সেন্সরের ক্ষমতা পরীক্ষা করছেন তারা। মাস্কটি বাজারজাত করা গেলে এয়ারপোর্টে তা ব্যবহার করা যাবে। কর্মক্ষেত্রে যেতে বা ফেরার সময়ও এটা কাজে দেবে। এর ব্যবহারে সবচেয়ে বড় সুবিধাটি পাবেন ডাক্তাররা।জিম কলিন্স করোনাভাইরাস আসার আগে থেকেই এ প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছিলেন। ২০১৪ সালে এমআইটিতে তার বায়োইঞ্জিনিয়ারিং ল্যাবরেটরিতে এমন একটি সেন্সর তৈরির কাজ শুরু করেন, যা ইবোলা ভাইরাসকে শনাক্ত করবে পারবে। এমআইটি এবং হার্ভার্ডের বিজ্ঞানীদের ক্ষুদ্র একটি দল তাদের গবেষণা প্রকাশ করেন ২০১৬ সালে। তারপর থেকে তারা জিকা ভাইরাসের ক্রমবর্ধমান ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছিলেন। সূত্র : কালের কণ্ঠ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *