স্ত্রীর মাথা নিয়ে থানায় যুবক

ভারতের বিহারের বক্সারে স্ত্রীর কাটা মাথা নিয়ে থানায় আত্মসমর্পণ করেছেন এক ব্যক্তি। দীর্ঘদিন ধরেই তাদের মধ্যে বনিবনা হচ্ছিল না।পুলিশ জানিয়েছে, বক্সারের ব্রহ্মপুর থানা এলাকার ব্রহ্মপুর শিবমন্দিরের কাছে শুক্রবার এই ঘটনা ঘটে। ওই যুবকের নাম আলগু যাদব। ৪৮ বছরের আলগুর স্ত্রীর নাম চাঁদনি দেবী। এদিন সকালে চাঁদনি দেবী যেখানে কাজ করেন সেখানে পৌঁছায় আলগু। তারপর হাতের ধারাল অস্ত্র দিয়ে প্রকাশ্যে রাস্তায় গলা কেটে তাকে খুন করেন।পুলিশ সূত্রে খবর, আলগু যখন চাঁদনিকে আক্রমণ করেন তখন সেখানে উপস্থিত জনতা তাকে আটকানোর জন্য পাথর ছুড়তে থাকেন। কিন্তু চাঁদনিকে কোপানো থামাননি আলগু। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। তারপরে স্ত্রীর কাটা মুণ্ডু নিয়ে সোজা থানায় চলে যান আলগু। সেখানে গিয়ে নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করেন তিনি। তাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।জানা গেছে, ২০১৩ সালে বিয়ে হয়েছিল আলগু ও চাঁদনির। ঝাড়খণ্ডের পাকুর জেলায় বাড়ি চাঁদনির। তাদের সংসারে একটি মেয়েও আছে। বিয়ের কয়েক বছর পর থেকে সংসারে অশান্তি বাড়তে থাকে। একটা সময়ের পর তারা সিদ্ধান্ত নেন আলাদা থাকবেন। সেইমতো আলাদাই থাকছিলেন তারা। আদালতে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা চলছিল।পুলিশ আরো জানিয়েছে, একটি শপিং মলে কাজ করতেন চাঁদনি। আলগু বারবার তাকে চাপ দিচ্ছিল যাতে তিনি আদালত থেকে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা তুলে নেন। সেইসঙ্গে তাকে ফিরে আসারও প্রস্তাব দেন তিনি। কিন্তু তাতে রাজি হননি চাঁদনি। উল্টো আলগুর কাছে খোরপোষের দাবি জানান চাঁদনি। তারপরেই নাকি চাঁদনিকে মারার পরিকল্পনা করেন আলগু।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *