ফ্লয়েডের হত্যায় অভিযুক্ত পুলিশকে নিয়ে যা বললেন কৃষ্ণাঙ্গ পুলিশ প্রধান

যুক্তরাষ্ট্রে মিনেপোলিসের পুলিশ প্রধান মেদারিয়া অ্যারাডোন্ডো নিরস্ত্র কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড হত্যার বিষয়টিকে ‘মানবতা লঙ্ঘন’ বলে অ্যাখায়িত করেছেন। তিনি ওই নগরীর প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ পুলিশ প্রধান। মেদারিয়া অ্যারাডোন্ডোই ফ্লয়েডের মৃত্যুর সাথে জড়িত চারজন কর্মকর্তাকে তাৎক্ষণিক বরখাস্ত করেছেন।

কারণ তার ভাষ্য মতে, ফুটেজ দেখার পর তাদের ভুল প্রমাণিত করার জন্য কোনো প্রক্রিয়ার প্রয়োজন ছিল না।

ফুটেজে স্পট দেখা গেছে শেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক চৌভিন ফ্লয়েডের ঘাড়ে হাঁটু গেড়েছিলেন যাতে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে ফ্লয়েড মারা যান।

অ্যারাডোন্ডো বলেছিলেন, ফুটেজটি দেখে আমি স্তম্ভিত ছিলাম।

তিনি সিএনএন সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ‘এ ঘটনায় আমার অনুভূতির এমন এক প্রতিক্রিয়া ছিল যা আমি আমার ক্যারিয়ারে কখনোই অনুভব করিনি।

তিনি আরো বলেন, ‘আমার মতে এটি ছিল মানবতার লঙ্ঘন। একই সাথে এটি একজন পুলিশ হিসেবে নেয়া ওই শপথেরও লঙ্ঘন। আমি বিশ্বাস করি হত্যাকাণ্ডটি যে কোনো অবস্থাতেই ভুল ছিল।

পুলিশ প্রধান মেদারিয়ার নেতৃত্বে ৪৪ বছর বয়সী চৌভিনকে থার্ড ডিগ্রি মার্ডার ও ম্যানস্লাটার (অনিচ্ছাকৃত হত্যা) অভিযোগে শুক্রবার গ্রেফতার করা হয়েছে। একই সাথে ফ্লয়েডের মৃত্যুর সাথে জড়িত অন্য তিন অফিসার তৌ থাও, জে আলেকজান্ডার কুয়েং ও টমাস কে লেনকেও বাহিনী থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। তবে তাদের গ্রেফতার করা হয়নি।

এ বিষয়ে তিনি বিলেন, উপস্থিত তিন জনের নীরবতা ও নিষ্ক্রিয়তা বিষয়টিকে জটিল করেছে।

চৌভিনসহ আরো তিন কর্মকর্তাকে কেন এত তাড়াতাড়ি বরখাস্ত করা হয়েছে এই প্রশ্নের উত্তরে অ্যারাদন্ডো বলেন, সত্যি হলো ফ্লয়েড আমাদের হাতে হত্যা হয়েছে। তাই আমি এটিকে জটিল হিসেবে দেখছি। ‘

গতরাতে অভিযুক্ত সাবেক পুলিশ চৌভিনকে ওক পার্ক হাইট জেলে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। চৌভিন সোমবার আদালতে হাজির হওয়ার কথা থাকলেও মিনেপোলিস এখনো অস্থিরতা বিরাজ করায় উপস্থিতি আট জুন পর্যন্ত কার্যক্রম পিছিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহে সোমবার কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার বিক্ষোভে এখন উত্তাল যুক্তরাষ্ট্র। বিভিন্ন রাজ্যে ছড়িয়ে পড়েছে ওই বিক্ষোভে। গ্রেফতার করা হয়েছে চার হাজার বিক্ষোভকারীকে। রোববার গভীর রাতে হোয়াইট হাউস, ওয়াশিংটন ডিসিসহ আমেরিকা জুড়ে শহরগুলোতে বিশৃঙ্খলা অব্যাহত ছিল।

এদিকে বিক্ষোভকারী ও ফ্লয়েডের পরিবার প্রাক্তন অফিসার কুয়েং, লেন ও টু থাওকে গ্রেফতারের জন্য ও অভিযুক্ত চৌভিনের বিরুদ্ধে আরো গুরুতর অভিযোগ আনার আহ্বান জানিয়ে আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে।

সূত্র : ডেইলি মেইল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *